কানাডাতে লুটেরাদের করি Naming & Shaming




কানাডাতে লুটেরাদের করি Naming & Shaming:

******************************************************

২০১২-২০১৩ সালের দিকের কথা। সাগর ভাইয়ের কাছে ড্রাইভিং শিখছিলাম। আমাকে নামিয়ে দিয়ে একটা তরুন বয়সী ছেলেকে তুলে। কথা প্রসঙ্গে জানতে পারলাম, নতুন এসেছে, ড্রাইভিং শিখে গাড়ি কিনবে। এক মাসের মধ্যে দেখলাম ছেলেটা পুরো টাকা শোধ করে ৩০,০০০ ডলার দিয়ে গাড়ি কিনে। গাড়ি কেনার প্রথম দিনেই এক্সিডেন্ট করে, সেই গাড়ি ফেরত দিয়ে আবার নতুন গাড়ি নিয়ে আসে। পরে জানতে পারি, ওর বাবা বাংলাদেশ থেকে যে টাকা নিয়ে এসেছে তা দিয়ে নাকি সারা জীবন কানাডাতে রাজার হালে চলতে পারবে। খুবই অবাক হই, এ কি করে সম্ভব? অন্তত এরকম একটা গরীব দেশ থেকে এসে, যেখানে আমাদের দিন আনি দিনে শেষ সেই রকম অবস্থা।

কানাডাতে বেগম পাড়ার কথা অনেক শুনেছি, শুনেছি ওদের টাকার ঝলখানি এবং এদের বউদের অহংকার। আজকে যখন এই লুটেরাদের মুখোশ উন্মেচিত হওয়া শুরু করেছে, আমি আশা করি এটা থেমে থাকবে না। এটা চলবে প্রতিনিয়ত। আমার ভয় হয়, কিছু দালাল আবার এই লুটেরাদের পক্ষ নিয়ে কথা বলবে আবার কিছু দিনের মধ্যে নতুন কোন আলোচ্য বিষয়ের কারনে অতলে হারিয়ে যাবে। আবার তারা আগের মত মাথা চারা দিয়ে উঠবে।

আমার খুবই ইচ্ছা এই সমস্ত মানুষদের জীবনটাকে জাহান্নাম করে দিতে। আবার যারা টাকা মেরে দিয়ে কোথাও চুপটি মেরে আছে, তাদের মনে ভয় ধরিয়ে দিতে। আবার যারা ভবিষ্যতে এই ধরনের কুকর্ম করবে তাদের একটা বার্তা দিতে, বাছা হও সাবধান। আসুন আমরা আমাদের জায়গা থেকে আমরা একটা সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলি, যা হবে Naming & Shaming। এটা যেন আবার ক্ষণস্থায়ী না হয় আবার সবার অনশগ্রহন থাকে।

সাইফুল,

টরেন্টো থেকে।




Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*