লো কোয়ালিটির মালামাল গ্রহণে অস্বীকৃতি জানানোয় গণপূর্ত অধিদপ্তরের সরকারি প্রকৌশলীকে ঠিকাদারের হাতে প্রহারের শিকার




Shoptorsi news

ডাক্তার আর ইঞ্জিনিয়ারদের জন্মই হইসে মাইর খাওয়ার জন্য। এতে অবাক হওয়ার কিছু নেই। গণপূর্ত অধিদপ্তরের সরকারি প্রকৌশলী ইনি। লো কোয়ালিটির মালামাল গ্রহণে অস্বীকৃতি জানানোর অপরাধে(!) ঠিকাদারের লোকজনের হাতে এভাবে প্রহারের শিকার হতে হয়েছে।

এদেশে কখনো ভালো কিছু সম্ভব না ঃ

৩৮ তম বিসিএসের রেজাল্ট দেওয়ার পর অনলাইন অফলাইন গরম হয়ে গিয়েছিলো- ডাক্তার ইঞ্জিনিয়াররা কেন তাদের লাইন ছেড়ে জেনারেল ক্যাডারে আসে, কেন ম্যাজিস্ট্রেট পুলিশ হয় ?
এই যে দেখেন- ইনি রাজশাহী গণপূর্ত বিভাগের একজন ইঞ্জিনিয়ার, নিজের লাইন ছেড়ে যান নাই। নিজের লাইনে থেকে যখন পুঠিয়ার ভূমি অফিস তৈরীতে সরবরাহ করা নিন্ম মানের মাল মশলা নিয়ে অভিযোগ করেন তখন ঠিকাদারের লোকেরা এসে মেরে গেছে।
আজকে এই লোক ম্যাজিস্ট্রেট বা পুলিশ হলে তার গায়ে কেউ হাত তোলার সাহস পাইতো ?
কয়েকদিন আগে এরকমই বুয়েটের আরেক ইঞ্জিনিয়ারকে মাত্র কয়েক হাজার টাকা দিয়ে খুনী ভাড়া করে মেরে ফেলা হইসে নিন্ম মানের কাজের কারণে বিল আটকে রাখায়। তিনি ছিলেন বুয়েট পাশ, সততার জন্য সুনাম ছিলো তার।
আর ডাক্তারদের কথা কী বলবো। প্রত্যন্ত অঞ্চলে উনাদের ডিউটি করতে হয় জান হাতে নিয়ে। হায়াত মউত আল্লাহর ইচ্ছা হলেও, রোগী মারা গেলে আত্মীয় স্বজনরা দোষটা চাপায় ডাক্তারদের উপর। ৫-৬ বছর খেটে ডাক্তার হয়ে ইনারা প্রত্যন্ত অঞ্চলে ডিউটি করেন যেন মানুষ মারার জন্য!! এই করোনার মধ্যেই বহু মানুষকে বিনা পয়সায় চিকিৎসা দেওয়া এক বয়স্ক ডাক্তারকে উপর্যুপরি আক্রমণ করে মেরে ফেলা হইসে। সেটার ভিডিওও আছে। বিচার হইসে সেটার ?
যে দেশে পেশাদারী দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে বর্বর সন্ত্রাসী ঠিকাদার আর রোগীর আত্মীয় নামক একদল পশুদের হাতে প্রাণের ঝুঁকিতে থাকা লাগে, সেখানে কারো মেধা ও যোগ্যতা থাকলে সে নিরাপত্তা ও ক্ষমতা আছে এমন পদে যাওয়ার চেষ্টা করবে না কেন? এদেশে কোন টেকনিকাল পদ তো সেজন্য খালি থাকে না! কোথাও ডাক্তার ইঞ্জিনিয়ার চাইলে ঠিকই হাজার হাজার আবেদন পড়ে !
ডাক্তার ইঞ্জিনিয়ার সহ সততার সাথে আপোষহীন সব পেশাদারদের নিরাপত্তা চাই। আর কে নিজ মেধা ও পরিশ্রম কাজে লাগিয়ে কোন পদে নির্বাচিত হচ্ছে তা নিয়ে অন্যদের অযাচিত নাক গলানোও বন্ধ হোক




Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*